অস্ট্রেলিয়ায় শোক ও শ্রদ্ধায় শহীদ জিয়ার ৪০ তম শাহদাৎ বার্ষিকী পালন

৩০ শে মে স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা জেড ফোর্সের প্রধান, বীর উত্তম শহীদ প্রেসিডন্ট জিয়াউর রহমানের ৪০ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী পালন করে বিএনপির সুবর্ন জয়ন্তী উদযাপন কমিটি, এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলীয় সমন্বয় কমিটি, অস্রেলিয়া চ্যাপ্টার। অন্যান্য বছরের মত এবার বাংলাদেশ সহ সারা বিশ্বের প্রবাসী বাংলীদেশীরা অত্যন্ত শ্রদ্ধার সাথে এই দিনটি উদযাপন করে। 

এই উপলক্ষে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন কমিটি এশিয়া প্যাসিফিকের অস্ট্রেলিয়া  চ্যাপ্টার ন্যাশনাল স্পোর্টস ক্লাব অডিটোরিয়ামে দোয়া ও আলোচনা সভার আয়োজন করে। আলোচনার বিষয়বস্তু ছিল জিয়া,উন্ন্য়ন ও গনতন্ত্র এবং শহীদ জিয়া স্মৃতি লাইব্রেরী ” কমল” উদ্বোধন এর প্রোগাম হাতে নেয়। দোয়া ও আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করেন বিএনপির সুবর্ন জয়ন্তী উদযাপন কমিটি, এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলীয় সমন্বয় কমিটি, অস্রেলিয়া চ্যাপ্টার এর সমন্বয়ক জনাব  প্রকৌশলী সোহেল মাহমুদ ইকবাল ও পরিচালনা করেন সংকলন বিষয়ক উপকমিটির সমন্বয়ক প্রকৌশলী হাবিবুর রহমান।

প্রথমেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত করেন মন্জুরুল হক আলমগীর এবং দোয়া পরিচালনা করেন মৌলানা ফেরদৌস। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের রুহের মাগফেরাত, বেগম খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমান সহ সারা বিশ্বের সকল মানুষের সুস্থতার জন্য দোয়া করা হয়।

সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন (ভার্চুয়ালী)বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড: আব্দুল মইন খান । বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কমিটির সদস্য ও বিএনপি স্বাধীনতা জয়ন্তী  জাতীয় উদযাপন কমিটির  সদস্য সচিব বীর মুক্তিযাদ্ধা আব্দুস সালাম, বিএনপির প্রশিক্ষন বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশারফ হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি জনাব আব্দুল কাইউম, স্বাধীনতা জয়ন্তী  জাতীয় উদযাপন কমিটির  এশিয়া প্যাসিফিক অন্চলের আহ্বায়ক এবং বিএনপির সহ আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড: শাকিরুল ইসলাম শাকিল যুগ্ম আহ্বায়ক এবং মালয়শিয়া বিএনপির সভাপতি প্রকৌশলী বাদলুর রহমান খান, সিঙ্গাপুর বিএনপির প্রেসিডেন্ট শামসুর রহমান ফিলিপ, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ কামরুল, সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী স্বপন, অস্ট্রেলিয়া বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা আব্দুল্লাহ ইউসুফ শামীম নিউজিল্যান্ড বিএনপি, কোরিয়া বিএনপি, হংকং বিএনপি ও অনেক নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের কর্মময় জীবনের উপর আলোকপাত করেন এবং নুতন প্রজন্মকেও তার জীবনাদর্শ পালনের জন্য আহ্বান করেন।

সভাপতি সোহেল ইকবাল তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন- শহীদ জিয়া মরেনি বেঁচে থাকবেন পৃথিবী যতদিন থাকে, তিনি বাঁচে থাকবেন বাংলার মানুষের অন্তরে. তিনি বলেন -শহীদ জিয়ার আদর্শ হচ্ছে গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করা. আমরা গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করে যাব আজীবন. তিনি অস্ট্রেলিয়া বিএনপির নেতাকর্মীদের তিনি উদাত্ব আহবান জানান, “ব্যাক্তি স্বার্থের উর্ধে উঠে গণতন্ত্রের পক্ষে দাঁড়ান, তবেই শহীদ জিয়ার আদর্শ বাস্তবায়িত হবে”। ভেদাভেদ ভুলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে গণতন্ত্রের পক্ষে কাজ করার আহবান জানান।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এশিয়া প্যাসিফিকের সদস্য ব্যারিস্টার নাসির উল্লাহ, জনাব মোহাম্মদ হায়দার আলী, মুন্নী চৌধুরী মেধা। এশিয়া প্যাসিফিক অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন কমিটির সমন্বয়ক জাকির আলম লেনিন, আশরাফুল আলম রনী, কুদরত উল্লাহ লিটন।

এ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি অস্ট্রেলিয়া আহ্বায়ক ড: হুমায়ের চৌধুরী রানা, জিয়া ফোরাম অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি আরিফুল হক, শিক্ষাবিদ শিবলী আব্দুল্লাহ, বিএনপি’র সাবেক আহ্বায়ক রুহুল আহমেদ সওদাগর, ফরিদ মিয়া, নজরুল ইসলাম নাফিজ,কে এম মন্জুরুল হক আলমগীর, ফয়জুর চৌধুরী হাজী মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, ইয়াছিন আরাফাত অপু, আবু সায়ীদ খুদরী, সায়মা খুদরী, তাফতুন নাঈম নিতু, মোহাম্মাদ জসিম,  মোবারক মিয়া , জসিমউদ্দিন, মফিকুল ইসলাম, শাহিনুর রহমান,মীর হোসেন, মাহমুদা বেগম, আবুল কাশেম, সাইফুল ইসলাম, পল গোমেজ, আবু বকর সিদ্দিক, মোহাম্মদ জাকারিয়া সহ আরো অনেক নেতাকর্মী। (প্রেস বিজ্ঞপ্তি)