সিডনিতে ইসলামী বার্তার ডিজিটাল মিডিয়া স্টুডিও’র উদ্বোধন

গত ১ নভেম্বর (রবিবার) সিডনির সেন্ট মেরিসে ইসলামী বার্তার ডিজিটাল মিডিয়া স্টুডিও উদ্বোধন করা হয়। প্যান-প্যাসিফিক ভীষণ ইনকর্পোরেটেড-এর একটি প্রজেক্ট ইসলামী বার্তার এই স্টুডিও উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসীদের মাঝে ইসলাম প্রচার ও সমাজসেবামূলক কাজের জন্য সুপরিচিত সামাজিক ও সাংস্কৃতিক নেতৃবৃন্দ এবং গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বরা উপস্থিত ছিলেন।

অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশীদের ঐতিহ্যবাহী ধর্মীয় ও সামাজিক সংগঠন ইসলামিক প্র্যাকটিস ও দাওয়াহ সার্কেলের সহযোগিতায় প্যান-প্যাসিফিক ভিশন বিগত বছরগুলোতে গণমাধ্যম, সাহিত্য ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে ইসলামের সুমহান আদর্শকে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

স্টুডিও উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানের সূচনায় স্বাগত বক্তব্যে প্যান-প্যাসিফিক ভীষণের চেয়ারম্যান এবং ইসলামিক প্র্যাকটিস এন্ড দাওয়াহ সার্কেলের নিউ সাউথ ওয়েলস শাখার মিডিয়া সেক্রেটারী বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা. সাদেক আহমেদ জানান, নানা প্রতিকূলতা স্বত্ত্বেও সংশ্লিষ্ট মানুষদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় ইসলামী বার্তা ধীরে ধীরে বর্তমানের অবস্থানে এসে পৌছেছে। ডিজিটাল মিডিয়া স্টুডিওটি ওয়েবসাইটের মানোন্নয়ন এবং ভবিষ্যতে আইপিটিভি বাস্তবায়নের যাত্রাপথে একটি উল্লেখযোগ্য অর্জন।

ইসলামী বার্তার উপদ্ষ্টো এবং চার্লস স্টার্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক শিবলী সোহায়েলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় অংশ নেয়া অতিথিবৃন্দের মাঝে ছিলেন অস্ট্রেলেশিয়ান মুসলিম টাইমস পত্রিকার সম্পাদক জিয়া আহমেদ, চ্যারিটি রাইট অস্ট্রেলিয়ার চেয়ারম্যান ডা. নাঈম ইসলাম, ইসলামিক প্র্যাকটিস এন্ড দাওয়াহ সার্কেলের সেন্ট্রাল প্রেসিডেন্ট ড. রফিকুল ইসলাম, সংগঠনটির সেন্ট্রাল ডেপুটি ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মনির হোসাইন, প্রাক্তন এনএসডব্লিউ প্রেসিডেন্ট আবদুল গণি, সিডনি প্রেস এন্ড মিডিয়া কাউন্সিলের সেক্রেটারী আবদুল মতিন, সুপ্রভাত সিডনি পত্রিকার প্রধান সম্পাদক আবদুল্লাহ ইউসুফ শামীম, পত্রিকাটির সম্পাদক ড. ফারুক আমিন, সিডনি প্রবাসী সাংবাদিক নাইম আবদুল্লাহ, সামাজিক ব্যক্তিত্ব রাশেদ খান প্রমুখ।

ইসলামী বার্তা ওয়েবসাইটটি বিগত তিন বছর যাবত নিয়মিত ইসলামী তথ্যকণিকা, সংবাদ, প্রবন্ধ, প্রশ্নোত্তর এবং নানা ভিডিও অনুষ্ঠান প্রকাশ করে আসছে। পাঠক সমাদৃত ওয়েবসাইটটি ইসলামী জ্ঞান, সাহিত্য ও সংস্কৃতির প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে ডিজিটাল কন্টেন্টস তৈরির উপর আরো জোর দেয়ার পরিকল্পনা করছে বলে আলোচক বৃন্দরা জানান। তারা বলেন, এ লক্ষ্যেই উন্নতমানের ভিডিও তৈরির সুবিধার্থে অত্যাধুনিক চলচ্চিত্র ও শব্দ ধারণের সুবিধাসম্পন্ন এ ডিজিটাল মিডিয়া স্টুডিওটি স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়ার অস্ট্রেলিয়ায় জাতি-বর্ণ-সংস্কৃতি নির্বিশেষে সকল ঘরানার ও প্রেক্ষাপটের মুসলিম কমিউনিটির নানা সংগঠন এবং সক্রিয় সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বগণ ইসলামী বার্তার সাথে সহযোগিতামূলক কর্মকাণ্ডের আওতায় এ স্টুডিওটি ব্যবহার করে নিজেদের জন্যও ভিডিও কন্টেন্টস তৈরির সুযোগ পাবেন বলে আয়োজকরা জানান।

আলোচনা অনুষ্ঠানে ‘ইসলামে গণমাধ্যমের গুরুত্ব’ শীর্ষক সূচনা বক্তব্য উপস্থাপন করেন সেন্ট মেরিস মসজিদের সম্মানিত ইমাম ও ইসলামী বার্তার প্রধান সম্পাদক শায়খ মুহাম্মদ আবু হুরায়রা। মসজিদ পরিচালনা পরিষদের সেক্রেটারি ও ওয়েস্টার্ন সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর আতাউর রহমান তাঁর বক্তব্যে মসজিদ প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় সকল সহায়তা দিয়ে ইসলামী বার্তার সাথে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। প্যান প্যাসিফিক ভিশনের প্রধান পরিচালক প্রকৌশলী ইরতাজ আহমেদ তাঁর সমাপনী বক্তব্যে সকল পৃষ্ঠপোষক ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের ধন্যবাদ জানান। আলোচনা সভা শেষে ডা. সাদেক আহমেদ সেন্ট মেরি’স মসজিদ কম্পাউন্ডে অবস্থিত ডিজিটাল মিডিয়া স্টুডিওটির উদ্বোধন করেন। এসময় প্যান প্যাসিফিক ভিশন ও ইসলামী বার্তার সকল পরিচালক ও কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, অত্যাধুনিক আলোকনিয়ন্ত্রণ, শব্দগ্রহণ এবং চলচ্চিত্রধারণ ব্যবস্থা, শব্দশোষণ প্রযুক্তি সহ উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন কম্পিউটারের এডিটিং প্যানেল সম্বলিত স্টুডিওটির মাধ্যমে ইসলামী বার্তা কর্তৃপক্ষ নানা গুরুত্বপূর্ণ ও সমসাময়িক প্রসঙ্গে বিশিষ্ট আলেম এবং শিক্ষাবিদদের অংশগ্রহণে আয়োজিত টকশো, সাক্ষাতকার, আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর ইত্যাদি অনুষ্ঠান রেকর্ড করার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে।