অস্ট্রেলিয়ায় লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ ॥ ভিক্টোরিয়াসহ কয়েকটি রাজ্যে লকডাউন শিথিল

মোহাম্মাদ আবদুল মতিন: অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ থেকে দশ জনকে গ্রেফত করেছে পুলিশ। মেলবোর্নে পার্লামেন্ট ভবনের বাইরে জড়ো হয়েছিল প্রায় দেড়শো বিক্ষোভকারী। এরা সেখানে জারি করা নানা বিধি-নিষেধের প্রতিবাদ জানাচ্ছিল। 

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নিয়ম ভঙ্গ করে এরা সেখানে বিক্ষোভ করে। পুলিশ জানিয়েছে, যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে তাদের ১ হাজার ৬শ অস্ট্রেলিয়ান ডলার পর্যন্ত জরিমানা করা হতে পারে। এদিকে গত শনিবার নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যের সংসদ ভবনের সামনে থেকে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভকারী এক নারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

প্রাণঘাতী করোনার প্রকোপ কমতে শুরু করায় অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জনবহুল অঙ্গরাজ্য ভিক্টোরিয়ায় আজ সোমবার থেকে বিভিন্ন কড়াকড়ি শিথিল করা হয়েছে। ভিক্টোরিয়া রাজ্যে যেমন, আশেপাশের লোকজনের বাড়িতে যাওয়া, ধর্মীয় অনুষ্ঠানে একত্রিত হওয়া, একসঙ্গে খেলা-ধুলায় অংশ নেওয়াসহ বিভিন্ন বিষয়ে আগে নিষেধাজ্ঞা ছিল। এখন এসব ক্ষেত্রে কড়াকড়ি একেবারে তুলে না নেওয়া হলেও অনেকটা শিথিল করা হয়েছে। এর আগে দেশটির নিউ সাউথ ওয়েলস, কুইন্সল্যান্ড ও ওয়েস্টার্ণ অস্ট্রেলিয়া অঙ্গরাজ্যে লকডাউন শিথিলের ঘোষণা দেওয়া হয়।

ভিক্টোরিয়ার প্রিমিয়ার ড্যানিয়েল অ্যান্ড্রিউ বলেন, আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে ৬৩ লাখ জনসংখ্যার রাজ্য ভিক্টোরিয়ার লোকজন বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পাবে। একসঙ্গে পাঁচজন সমবেত হতে পারবে। অপরদিকে, যে কোনো সামাজিক অনুষ্ঠানে ১০ জন অংশ নিতে পারবে। প্রায় দু’মাস ধরে অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে লকডাউন জারি ছিল এবং দেশটির সীমান্তও বন্ধ রাখা হয়েছে। করোনার বিস্তাররোধ করতেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তবে মেয়র সতর্ক করে বলেছেন, লকডাউন শিথিল করার মানে এই নয় যে, বাড়ি বাড়িতে নৈশভোজের আয়োজন করা যাবে এবং লোকজনকে আমন্ত্রণ দেওয়া হবে। তিনি বলেন, আমাদেরকে নিজেদের বিবেক, বুদ্ধি কাজে লাগাতে হবে।

এদিকে, আগামী ১৫ মে (শুক্রবার) থেকে লকডাউন আরো শিথিল হচ্ছে নিউ সাউথ ওয়েলস্ রাজ্যে। গতকাল রোববার এই রাজ্যের প্রিমিয়ার গ্লাডিস বেরেজিকলিয়ান সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, আমরা লকডাউন শিথিল করছি তার মানে এই নয় যে, ভাইরাসের ঝুঁকি কমে গেছে বা ভাইরাস আর প্রাণঘাতী নয়। বরং আমরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছি বলেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, আগামী ১৫ মে থেকে রেস্টুরেন্ট, ক্যাফে খুলে দেওয়া হবে এবং একে অন্যের বাড়িতে যাওয়ার অনুমতি পাবেন। বাইরে একসঙ্গে ১০ জন সমবেত হতে পারবেন এবং যে কারো বাসায় পাঁচজন বেরাতে যেতে পারবেন।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s