অস্ট্রেলিয়ায় চাকুরী হারানো কর্মীদের ‘জবকিপার’ সহায়তা

অস্ট্রেলিয়ায় করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্থদের সহায়তায় প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন গত ৩০ মার্চ (সোমবার) ১৩০ বিলিয়ন অস্ট্রেলিয়ান ডলারের ঘোষনা দেন। স্মরনকালের সবচেয়ে বেশি অংকের এই ‘জবকিপার’ সহায়তা দিয়ে অস্ট্রেলিয়ার নাগরিকদের এই মহাদুর্যোগের দিনে চাকরি সামলাবে সরকার।

এই সহায়তায় প্রায় ৬০ লক্ষ চাকুরী হারানো কর্মী আগামী ৬ মাস প্রতি দুই সপ্তাহের ব্যবধানে ১৫০০ ডলার আর্থিক সহায়তা পাবেন। খণ্ডকালীন ও ক্যাজুয়াল কর্মী এবং নিউজিল্যান্ডের নাগরিক যারা কমপক্ষে গত এক বছর কাজ করছেন, তারাও এই  সুবিধা পাবেন। তবে কর্মীর স্বামী বা স্ত্রী বা পার্টনারের বার্ষিক আয় ৭৯ হাজার ডলারের ওপরে হলে এ সুবিধা পাবেন না।

এর আগে করোনাভাইরাসের মহাদুর্যোগ মোকাবেলায় আরও দুইটি সরকারী ঘোষনায় ৮ হাজার ৩৬০ কোটি ডলারের সহায়তা বাজেটের আওতায় অস্ট্রেলিয়ার বেকার নাগরিকরা প্রতি দুই সপ্তাহে সরকার থেকে সাড়ে ৫০০ ডলারের পরিবর্তে ১৫০০ ডলার পাবেন। এ ছাড়াও  বয়স্ক, শারীরিক প্রতিবন্ধী, নিম্ন আয়ের অভিভাবক যারা  শিশু অথবা স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের লালন-পালন করেন, তাঁদের নিয়মিত সরকারী ভাতার সঙ্গে অতিরিক্ত এককালীন ৭৫০ ডলার দেওয়ার ঘোষনা দেয়া হয়েছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৩ শত ৫৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ১৮ জনের। অস্ট্রেলিয়ায় এই পর্যন্ত করোনাভাইরাস শনাক্ত করার জন্য ২ লক্ষ ৩০ হাজারেরও বেশী মানুষকে পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে অস্ট্রেলিয়ায় কোনো প্রবাসী বাংলাদেশির করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।