সিডনি প্রবাসীরা দেশের চিকিৎসা খাতে পিপি জ্যাকেট পাঠাবে

করোনা ভাইরাস সঙ্কটে সিডনি প্রবাসী বাংলাদেশীরা দেশের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ জ্যাকেট সরবরাহ করবে। এই মহতি উদ্যোগের সাথে সিডনি প্রবাসীদের মধ্যে আছেন হাসান সাইমুন ফারুক রবিন, রুহুল আমিন, ফরহাদ আসমার, সুলতানা নদী, নাদিম পরদেশী, তারেক ইসলাম, আরিফ রহমান, হক নাদের প্রমুখ।

অন্যতম উদ্যোগতা হাসান ফারুক সাইমুন রবিন জানান, সারা পৃথিবী আজ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। আমরা সংবাদ মাধ্যমে জানতে পেরেছি যে, বাংলাদেশের হাসপাতাল গুলোতে কর্তব্যরত ডাক্তার ও নার্সদের জন্য পর্যাপ্ত পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ জ্যাকেট না থাকায় তারা রোগীদের চিকিৎসা দিতে ভয় পাচ্ছেন। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে আমরা প্রবাসীরা সামান্য উদ্যোগ গ্রহন করেছি। আমরা আশা করবো আমাদের কষ্টার্জিত অর্থ দিয়ে পাঠানো পার্সোনাল প্রোটেক্টিভ জ্যাকেট যেন শুধুমাত্র চিকিৎসা খাতেই ব্যবহৃত হয়। পাশাপাশি তিনি পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদের এই সেবায় এগিয়ে আসার জন্য বিনীত অনুরোধ জানান।

বাংলাদেশী কমিউনিটি ইন ক্যাম্বেলটাউন করোনা ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে থাকবে

সিডনির ক্যাম্বেলটাউনস্থ বাংলাদেশী কমিউনিটি করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্থ প্রবাসী বাংলাদেশীদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে। এক ফেজবুক পেজে তারা জানান, ক্যাম্বেলটাউনের এলাকায় করোনা ভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্থদের যে কোন ধরনের সহযোগিতায় ও প্রয়োজনে আমরা পাশে থাকছি। বাংলাদেশী কমিউনিটি ইন ক্যাম্বেলটাউন অত্র এলাকার সবাইকে মনোবল বজায় রাখতে, লজ্জিত কিংবা হতাশা গ্রস্থ না হয়ে তাদের https://m.facebook.com/COVID-19-Support-Group-Campbelltown-105124057806641/ ইনবক্স করতে বিনীত অনুরোধ জানিয়েছে।  পাশাপাশি যারা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে চান তারাও যোগাযোগ করতে পারেন।

করোনা এন্টার্কটিকা ছাড়া কোন সীমারেখা মানেনি।। রেহাই পাননি বিশ্বের অনেক ক্ষমতাধর ব্যক্তি

করোনা ভাইরাস কোন সীমারেখা মানছে না। এন্টার্কটিকা মহাদেশ ব্যাতীত বিশ্বের ১৯৯টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়েছ পড়েছে এই ভাইরাস। এই পর্যন্ত বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছ প্রায় ৬ লক্ষ এবং মৃত্যুবরন  করেছে  ২৭ হাজারেরও অধিক মানুষ।

করোনা ভাইরাসের প্রকোপ মোকাবিলা করতে ‘লকডাউন’ করায় কাজ হারিয়েছে লক্ষ লক্ষ মানুষ। শ্রম বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, এক সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে ৩৩ লক্ষ মানুষ বেকারভাতার জন্য আবেদন করেছেন, যা রেকর্ড। বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়। অস্ট্রেলিয়ায় ইতিমধ্যেই ১ মিলিয়ন মানুষ বেকার হয়েছে। 

বিশ্ব অর্থনীতির ওপর করোনাভাইরাসের যে প্রভাব পড়েছে তা কাটিয়ে উঠতে অনেক বছর সময় লেগে যাবে। পৃথিবীর ২০টি ধনী দেশের জোট জি-টোয়েন্টি, করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবেলায় বিশ্বব্যাপী পরিকল্পনা নিয়ে টেলিযোগাযোগের মাধ্যমে আলোচনা শুরু করেছে। বৈঠকের আগে জাতিসংঘ হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় লক্ষ লক্ষ উদ্বাস্তু এবং শরণার্থীরা যে চরম হুমকির মুখে আছে, সেটার ওপর যেন মনোযোগ দেয়া হয়। 

সৌদি আরব বৃহস্পতিবার জি-২০ দেশগুলির সঙ্গে প্রথম ভার্চুয়াল শীর্ষ সম্মেলনের আয়োজন করে। করোন ভাইরাস সংকটে সম্মিলিতভাবে কিভাবে বিশ্বের অর্থনৈতিক প্রতিক্রিয়া মোকাবেলা করা যায় তা নিয়ে আলোচনা হয়।

এই করোনা ভাইরসের করাল গ্রাস থেকে রেহাই পাননি বিশ্বের অনেক ক্ষমতাধর ব্যক্তি। করোনাভাইরাস আক্রান্ত বিশ্ব নেতা, রাজনীতিবিদ ও উচ্চ পদস্থদের একটি তালিকা নিম্নে দেয়া হলো: 

অস্ট্রেলিয়া:  অস্ট্রেলিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পিটার ডাটন, লিবারেল ন্যাশনাল পার্টি কুইন্সল্যান্ডের সিনেটর সুসান ম্যাকডোনালস্ ও লিবারেল পার্টি অব অস্ট্রেলিয়ার সিনেটর (নিউ সাউথ ওয়েলস্) এন্ড্রু ব্রাগগ।

ব্রাজিল: ব্রাজিলের প্রেসিডন্ট জায়েল বলসোনারোর প্রেস সচিব ফাবিও ওয়াজাংগার্টেন, ওয়াশিংটনে ব্রাজিলের শার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স আগস্টো হেলেনো এবং সিনেটর দেবি আলকলাম্বের।

কানাডা: কানাডার কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর স্ত্রী সোফি গ্রেগৈর ট্রুডো। 

ইউরোপীয় ইউনিয়ন: ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রধান আলাপালোচনকারী মাইকেল বারনিয়ার।

ফ্রান্স:  ফ্রান্সের সংস্কৃতিমন্ত্রী ফ্রাঙ্ক রিস্তার, বাস্তুসংস্থানমন্ত্রী ব্রুনে পয়েরসন, একজন সংসদ সদস্য, পার্লামেন্টের এক কর্মকর্তা আক্রান্ত হয়েছেন।

জার্মানি:  জার্মানির খ্রিস্টান ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন পার্টির প্রধান নেতা ফ্রেডরিচ মেজ। 

ইরান:  ইরানের ২৪ জন সংসদ সদস্য আক্রান্ত। দুই সংসদ সদস্য ফাতেমা রাহবার ও মোহাম্মদ আলী রামেজানি মারা গেছেন। ইরানের উপ-স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইরাজ হারিসি এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট মাসুমেহ এবতেকারও আক্রান্ত হয়েছেন।

ইসরাইল: ইসরাইলের জার্মানিতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূত জেরিনি ইশাচারোফ।

ইতালী: ইতালীয়ান ডেমোক্রেট পার্টির প্রধান নিকোলা জিংগারেট্টি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং ইতালীর ক্যানে মিউনিসিপলিটির মেয়র জর্জিও ভেলোটি ও রোবারতো স্তেলা মৃত্যুবরণ করেন।

মোনাকো: মোনাকোর প্রিন্স আলবার্ট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। 

রওয়ে:  নরওয়ের সোশ্যাল এন্ড লেবার মিনিস্টার টর্বজন রোয়ি ইসাকসেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। 

স্পেন:  করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ ও স্ত্রী মারিয়া বোগোনিয়া গোমেজ। এছাড়াও কোয়ালিটি মিনিটস্টার ইরিনি মন্ট্রিনিও, সেক্রেটারী জেনারেল অব ফার কাউট বক্স জাবির ওরতেগা স্মিথ, স্পেনিশ রিজিওন অব ক্যাটালোনিয়ার নেতা কুইনস টোরা এবং ক্যাটালন সরকারের ডেপুটি প্রধান পেরে আরাগোনেস।

বৃটেন:  বৃটিশ প্রধানমন্ত্রী ‘বরিস জনসন’ও রেহাই পাননি করোনাভাইরাসের করাল গ্রাস থেকে। তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে আছেন। বৃটিশ রাজপরিবারের অন্যতম সদস্য প্রিন্স চার্লস ও স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী নাদিন ডোরিস করোনাভাইরাস আক্রান্ত হন।

জাতিসংঘ: জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড ফুড বিভাগের প্রধান পরিচালক ডেভিড বিয়েসলিও করোনাভাইরাস আক্রান্ত হন।

আমেরিকা: আমেরিকার একাধিক রাজনীতিবিদ ও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন; এদের মধ্যে রিপাবলিকান সিনেটর রান্ড পল, ফ্লোরিডা রিপাবলিকান প্রতিনিধি মারিও ডিয়াজ বালার্ট, নিউ ইয়র্ক স্টেটের এ্যাসেম্বিলির দুই সদস্য হেলেন ওয়েইনেস্টেইন এবং চার্লস ব্যারন, যুক্তরাষ্ট্রের মিয়ামি রাজ্যের মেয়র ফ্রান্সিস সুয়ারেজ, অস্কারজয়ী হলিউড তারকা টম হ্যাঙ্কস ও তার স্ত্রী রিটা উইলসন।

ফুটবল তারকা:  ইতালির ফুটবল তারকা ডানিয়েল রুগানি, ফরাসি এনবিএ বাস্কেটবল খেলোয়াড় রুডি গোবার্ট ও ডনোভন মিচেল, আর্সেনাল ফুটবল ক্লাবের কোচ মিকেল আর্তেতা, ব্রিটিশ ফুটবল তারকা ক্যালাম হাডসন ওডোই এবং চিলির সাহিত্যিক লুই সেপুলভেদা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

মোহাম্মাদ আব্দুল মতিন, সাংবাদিক  সম্পাদক: বিদেশবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকম সাধারণ সম্পাদক: সিডনি প্রেস এ্যান্ড মিডিয়া কাউন্সিল, অস্ট্রেলিয়া