সীমান্তে হত্যা বন্ধের দাবি জানিয়েছে সিডনি প্রেস এন্ড মিডিয়া কাউন্সিল

বাংলাদেশ ভারত যৌথচুক্তি অনুসারে বিনা অনুমতিতে বাংলাদেশ থেকে কেউ ভারতে প্রবেশ করলে অনুপ্রবেশকারী হিসেবে গণ্য হবে। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তার বিচার হবে। কিন্তু বিএসএফ নিজেরাই আইন হাতে তুলে নিচ্ছে এবং নির্বিচারে বাংলাদেশীদের হত্যা করছে।

সিডনি প্রেস এন্ড মিডিয়া কাউন্সিল সভাপতি ড. এনামুল হক এবং সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ আব্দুল মতিন স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে অবিলম্বে সীমান্তে হত্যা বন্ধের দাবি এবং খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের দেশদ্রোহী মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে।

বর্তমানে বিএসএফ সীমান্তবর্তী বাংলাদেশিদের জন্য এক আতঙ্কের নাম। প্রায় প্রতিদিনই কেউ না কেউ বিএসএফ’র গুলিতে নিহত হচ্ছে। বছরের প্রথম ২৩ দিনে বিএসএফ’র গুলিতে ১৫ বাংলাদেশি নিহত হয়েছে কিন্তু বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তেমন কোনো প্রতিবাদ হচ্ছে না। এমনকি ভারত থেকেও কোন দুঃখ প্রকাশ করছে না।

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে বিএস-এফের গুলিতে বাংলাদেশিদের হত্যা বন্ধ করতে হলে ভারতীয় সীমান্তরক্ষীদের দোষ দিয়ে লাভ নেই বলে সম্প্রতি মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। কাউন্সিল এধরনের দেশদ্রোহী মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ এবং অবিলম্বে সীমান্তে হত্যা বন্ধের দাবি জানিয়েছে। আর একজন বাংলাদেশিও নিহত হওয়ার আগে তারা এর সুরাহা চেয়ে সীমান্তে হত্যা বন্ধ এবং যেসমস্ত পরিবার সীমান্তে হত্যার শিকার হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবিও জানিয়েছে। (সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)