স্বদেশ এন্টারটেইনমেন্ট এর নাটকে জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিশা

প্রবাসী প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান স্বদেশ এন্টারটেইনমেন্ট এর প্রযোজনায় ‘আদা সমুদ্দুর’ নাটকে অভিনয় করছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। এই নাটকে আসন্ন গেন্ডারিয়া থানার কমিশনার নির্বাচন-১৯৯৯ এর প্রার্থী অভিনেত্রী তিশা ৪৬নং ওয়ার্ডের কমিশনার পদপ্রার্থী হিসেবে ঘুড়ি মার্কায় ভোট চাইছেন। তবে মজার বিষয় পোস্টার ও প্রচারণা তিশা নামে নয়, তিনি অংশ নিয়েছেন নওশিন জাহান হেনা নামে।

নাটকের প্রয়জনে তিশা নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। এমন কি পোস্টারও ছেপেছেন। নির্মাতা রাইসুল তমালের ‘আদা সমুদ্দুর’ নাটকে এই নির্বাচনে তিশাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মাহমুদুল ইসলাম মিঠু। খন্দকার রফিকুল ইসলাম মুন্না নামে হাতি মার্কায় দাঁড়িয়েছেন তিনি।

পরিচালক রাইসুল তমাল জানান, সম্প্রতি পুরান ঢাকার ফরাশগঞ্জে নাটকের দৃশ্যধারণ সম্পন্ন হয়েছে। স্বদেশ এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে খুব শিগগিরই বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেলে ‘আদা সমুদ্দুর’ নাটকটি প্রচার হবে।

নাটকটির প্রযোজক ও স্বদেশ এন্টারটেইনমেন্ট-এর কর্ণধার ফয়সাল আজাদ ঢাকা থেকে জানান, নাটকটির গল্প খুবই চমৎকার তাই স্বদেশ এন্টারটেইনমেন্ট নাটকটি নির্মাণে কাজ করছে। পুরো টিমটি খুবই আন্তরিক, আমরা আশাবাদী দর্শক নাটকটি উপভোগ করবে।

দয়াল সাহার রচনায় ‘আদা সমুদ্দুর’ নাটকে আরও অভিনয় করেছেন মুশফিক ফারহান, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, দাউদ নূর, নিকোল কুমার মন্ডল, আনোয়ার হোসেন, শিখা মৌ, তাবাসসুম মিথিলা প্রমুখ।

নাটকটির সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান সবুজ, আরিফ হোসেন, তৌহিদ চেীধুরী নীল ও কাজী নাসির। এছাড়া নাটকটি নির্মাণে অন্যান্য অংশে আছেন, ডিওপি-নাহিয়ান বেলাল, এডিট ও কালার-রমজান আলী, পোস্টার ডিজাইন-তরিকুল ইসলাম, আর্ট ডিরেক্টর-শান্ত, ড্রোন-শেখ সমুদ্র প্রমুখ। 

অস্ট্রেলিয়ায় ফায়ার ফাইটারদের সাহায্যার্থে আইইউবি আ্যলামনাইয়ের উদ্যোগ

সিডনীতে বসবাসরত বাংলাদেশী বেসরকারী বিশ্ববিদ্যলয় আইইউবি এর প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সংগঠন আইইউবি এলামনাই এসোসিয়েশন বরাবরই বিভিন্ন জনহিতকর কর্মকান্ড স্বতস্ফুর্তভাবে আয়োজন করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় এলামনাইয়ের সভাপতি ইলিয়াস চৌধুরীর নেতৃত্বে এবার তারা অষ্ট্রলিয়ায়, বিশেষ করে সিডনীর আশেপাশে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া দুর্যোগ, বুশ ফায়ার দমনে সকল ফায়ার ফাইটার এবং ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য অর্থ আহরণের কাজ হাতে নিয়েছে। 

“উল্লেখ্য সিডনীর আশপাশ বনবেষ্টিত এলাকায় প্রবল অগ্নিকাণ্ডে অনেক মানুষ গৃহহারা, এই আগুন দমন করতে গিয়ে বেশ কিছু বীরসম ফায়ার ফাইটার তাদের জীবন বাজি রেখে কাজ করছে। যদিও রাজ্য সরকারের তরফ থেকে তেমন কোন আর্থিক সহায়তা চাওয়া হয়নি তবুও মানবিকতার দিকটা নজরে রাখলে অষ্ট্রেলিয়ার নাগরিক হিসেবে এটা আমাদের নৈতিক এবং মানবিক দায়িত্ব যে আমাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া।” জানান এলামনাইয়ের প্রেসিডেন্ট ইলিয়াস চৌধুরী। 

সংগ্রহকৃত অর্থ যথাযোগ্য স্থানে বন্টন এবং প্রেরণের প্রতিশ্রুতি দিয়ে আইইউবি এলামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি সকলকে নিম্নোক্ত লিংকে স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহনের আহবান জানিয়েছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

https://www.gofundme.com/f/supporting-our-fire-fighters?utm_source=customer&utm_medium=copy_link&utm_campaign=p_cp+share-sheet

সিডনিতে ফ্রেন্ডস এন্ড ফ্যামিলি কালচারাল ক্লাবের ইংরেজি বর্ষ বিদায় উদযাপন

গত ২৮ ডিসেম্বর (শনিবার) দুপুরে সিডনিতে ফ্রেন্ডস এন্ড ফ্যামিলি (এফ এন্ড এফ) কালচারাল ক্লাব ম্যাকুরি ফিল্ডস্থ ড্রিম কটেজে ইংরেজি বর্ষ বিদায় উদযাপন উপলক্ষে এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। পূরবী পারমিতার সাবলীল উপস্থাপনায় বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে অনুষ্ঠান শুরুর পর শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন এফ এন্ড এফ কালচারাল ক্লাবের অন্যতম উদ্যোক্তা, স্বপ্ন ব্যান্ডের দলনেতা ও ভোকালিস্ট মিঠু।

মুল অনুষ্ঠান শুরু হয় ছোট্ট সোনামণি মুন, পৃথিবী, আরিবা, ইশান, শায়ান এর গান ও কবিতা আবৃতি দিয়ে।  বড়দের পরিবেশনায় গান ও নাচে অংশ নেন স্মিতা, আমরিন, নিলুফা, ইভানা, রুবা, দিবিয়া, মিঠু, সুজন, মামুন, রুহুল, রোখসানা, আনিস প্রমুখ। সার্বক্ষণিক ও মঞ্চ ও যন্ত্র সঙ্গীতে সহায়তা করেছেন সুজন, দিবিয়া, জনি ও শিপ্লু।

অতিথি ছিলেন কাউন্সিলর মাসুদ চৌধুরী ও কাউন্সিলর শাহে জামান টিটু। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এনাম হক, কাজী আরমান, আবু তারিক, মিউজিক বিডি ডট কম ডট এইউ এর সত্ত্বাধিকারী আরিফুর রহমান প্রমুখ। এফ এন্ড এফ কালচারাল ক্লাবের অন্যতম উদ্যোক্তা ইভানার সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ও এনি, তান্নি এবং স্বর্ণার সার্বিক তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠানে হরেক রকমের সুস্বাদু খাবার ও মিষ্টি পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠানে বাচ্চাদের খেলার জন্য জাম্পিং ক্যাসেলেরও ব্যবস্থা ছিল।

সিডনিতে মরহুম আব্দুর রাজ্জাক স্মরনে নাগরিক শোক সভা আগামী ৪ জানুয়ারী

অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের (একাংশ) সদ্য প্রয়াত সভাপতি মরহুম ডঃ আব্দুর রাজ্জাকের “নাগরিক স্মরণ সভা” আগামী ৪ জানুয়ারী ( শনিবার) বিকাল  ৬টায় রকডেলের স্টার কাবাব হল রুমে অনুষ্ঠিত হবে। অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এনায়েতুর রহিম বেলাল ও ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আলাউদ্দীন আলোক এই তথ্য সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন।

তারা আরও জানান, মরহুম রাজ্জাক স্পর্শ করেছেন অগনিত জীবনকে। ক্ষনজন্মা-আপদমস্তক দেশপ্রেমিক,  সবার প্রিয় রাজ্জাক ভাই ছিলেন আমাদের দ্বিতীয় ভুবনের প্রধানতম সাহসী পুরুষ। এই নাগরিক শোক সভায় রাজ্জাক ভাইয়ের প্রতি শেষ সম্মান জানানোর সভায় আপনারা আমন্ত্রিত। যারা ফোন পাননি বা এসএমএস পাননি আমাদের ভুলে, যারা নিজ ইচ্ছেয় ও ভালোবাসায় আসতে চান তাদের অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের সাথে যোগাযোগের জন্য বিনীত অনুরোধ জানান।

আয়োজক কমিটি অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগ আয়োজিত এই “নাগরিক স্মরণ সভা”য় সবাই উপস্থিত বিনীতভাবে কামনা করছেন।

সিডনিতে প্রথম অস্ট্রেলিয়ান বাংলাদেশী ব্যাডমিন্টন সুপার সিরিজ ২০১৯ অনুষ্ঠিত

গত ১৫ ডিসেম্বর সিডনি’র টেম্পির রবিন ওয়েবস্টার স্পোর্টস সেন্টারে জাকজমকপূর্ণ ভাবে প্রথম “অস্ট্রেলিয়ান বাংলাদেশী ব্যাডমিন্টন সুপার সিরিজ ২০১৯” শেষ হয়। এই প্রথমবারের মতো ৪০ টিরও বেশি বাংলাদেশী টীম ২ টি বয়স শ্রেণীতে বিভক্ত হয়ে এই টুর্নামেন্ট এ অংশগ্রহণ করে। এই টুর্নামেন্ট এ ওপেন গ্রুপ এ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রাকেশ – আরাফাত জুটি এবং রানার আপ হয়েছে সাহেদ – রবিন জুটি। অন্য দিকে সিনিয়র গ্রুপ এ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাবু – সাহেদ জুটি এবং রানার আপ হয়েছে টুটুল – আতিক জুটি। 

টুর্নামেন্ট এ ওপেন গ্রুপ ও সিনিয়র গ্রুপ এর চ্যাম্পিয়ন, রানার আপ ও সেমিফাইনালিস্ট এর জন্য ট্রফি সহ সর্বমোট ৩০০০ ডলার পুরস্কারের ব্যবস্থা ছিল। গত ২২ ডিসেম্বর রকডেল ওল্ড টাউন ষ্টার কাবাব ফাঙ্কশন সেন্টারে এক জাকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিজয়ীদের হাতে ট্রফি তুলে দেওয়া হয়। সিডনির গণ্য-মান্য ব্যক্তিত্ব, অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ প্রেস এন্ড মিডিয়া ক্লাব এর মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সহ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগী ও তাদের পরিবার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

লিংকন সফিকউল্লার সঞ্চলনায় পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ বক্তব্য প্রদান করেন প্রতিযোগিতার অন্যতম আয়োজক ইকবাল ইউসুফ টুটুল। এছাড়া বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশী কমিশনার মোহাম্মদ জামান টিটু ও বাংলাদেশী ব্যাডমিন্টন প্লেয়ার্স এসোসিয়েশন সিডনি’র সভাপতি কেসিম শামীম। পুরস্কার বিতরিনী শেষে উপস্থিত সকলের সৌজন্যে এক বিশেষ নৈশ ভোজের আয়োজন করা হয়।

প্রথম “অস্ট্রেলিয়ান বাংলাদেশী ব্যাডমিন্টন সুপার সিরিজ ২০১৯” এর মিডিয়া পার্টনার ও সার্বিক সহযোগিতায় ছিল অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ প্রেস এন্ড মিডিয়া ক্লাব। অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানানো হয় এবং আগামীতে আরো আকর্ষণীয় ভাবে অস্ট্রেলিয়ান বাংলাদেশী ব্যাডমিন্টন সুপার সিরিজ আয়োজনের প্রত্যয় ব্যাক্ত করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

সিডনিতে যীশু খ্রিস্টের জন্মদিন উপলক্ষে বড়দিন উদযাপন

ডঃ রতন কুণ্ডুঃ গত ২৫ ডিসেম্বর (বুধবার) সিডনির ওয়েন্টওয়ার্থ ভিল রেডগাম সেন্টারে বাংলাদেশ ক্রিস্টিয়ান ফেলোশিপ অফ অস্ট্রেলিয়া প্রভু যীশু খ্রিস্টের জন্মদিন উপলক্ষে বড়দিন উদযাপন করে। সংগঠনটি সিডনিতে দীর্ঘ চব্বিশ বছর যাবৎ খ্রিষ্টধর্ম, বাঙালি সংস্কৃতি ও মূল্যবোধ নিয়ে কাজ করে আসছে।

সংগঠনের সভাপতি ড. রোনাল্ড পাত্র ও সাধারণ সম্পাদক ডেইজি মিঠু বিশ্বাসের নেতৃত্বে নিবেদিত প্রাণ সদস্যরা তাদের প্রতিটি অনুষ্ঠানই খুব সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করে সার্থক করে তোলে।ডেইজি মিঠু বিশ্বাসের সূচনা বক্তব্যের পরে মানিক বাড়ৈ ও আমোস দেউড়ির সঞ্চালনায় প্রার্থনা পর্ব শুরু হয়।

বর্তমান প্রজন্মের একটি মেয়ে ও ছেলে পবিত্র বাইবেল থেকে পাঠ করে শোনায়। এরপরে সমবেত শিশু শিল্পীরা এডওয়ার্ড অধিকারীর লিখা একটি প্রার্থনা সংগীতে অংশগ্রহণ করে। মানিক বাড়ৈ পবিত্র বাইবেল থেকে পাঠ করেন ও প্রার্থনা পরিচালনা করেন। প্রার্থনা সংগীতে ফেলোশিপের বড় শিল্পীরা অংশগ্রহণ  করেন। এরপর ড. রোনাল্ড পাত্র অভ্যাগত অতিথিদের বড়দিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে বক্তব্য রাখেন। জুলিয়েট পপি শাহ সংগঠনের বড়দিনের প্রকাশনা “জল” সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন। এ সময়ে জলের প্রচ্ছদকার এডওয়ার্ড অধিকারী ও পল সি মধুও জল সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন।

প্রতিবারের মতো ছোটদের ও বড়দের নিয়ে সাংস্কৃতিক পর্ব  পরিচালনা করেন ন্যান্সি লিনা ব্যারেল ও এডওয়ার্ড অধিকারী।এতে নাচ, গান ও অভিনয় দর্শক শ্রোতাদের মুগ্ধ করে। একটি একাংকিকায় লরেন্স ব্যারেল ও জুলিয়েট পপি শাহ অনবদ্য অভিনয় করে সবাইকে আমোদিত করেন। বড়দিনের মূল আকর্ষণ হলো দক্ষিণ মেরু থেকে শান্তার  আগমন ও শিশু, কিশোরদের জন্য আকর্ষণীয় গিফট ও মিষ্টি বিতরণ করে। সর্বশেষ আকর্ষণ রাফেল ড্র পরিচালনা করেন লরেন্স ব্যারেল।

প্রতিবছরের ন্যায় এবারেও অভ্যাগত অতিথিদের জন্য হরেক প্রকার এন্ট্রি আইটেম, চা, কফি, কোমল পানীয়, মধ্যাহ্ন ভোজ ও দিনের শেষে অনেক প্রকার পিঠা, পায়েস ও কেক এর বন্দোবস্ত ছিলো বিশ্বমানবতার মঙ্গল কামনা করে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।

টংগীর হাজী সাইদ ল্যাবরেটরি স্কুলের ফলাফল প্রকাশ

টংগীর স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাজী সাইদ ল্যাবরেটরি স্কুলের বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল ও মেধা পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান গত ১৯ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) অনুষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও টংগী প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সৈয়দ অাতিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিডনি প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদক বিশিষ্ট সাংবাদিক মোহাম্মদ আবদুল মতিন।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক আলহাজ্ব সাইদুল ইসলাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অাব্দুস সালাম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আবু তাহের, মশিউর রহমান, সাজ্জাদ নাদিম সাজু, ইমামুল হক, হাসান শেখ, আব্দুর রাজ্জাক রকি, আখতার হোসেন প্রমুখ।

আলোচনা শেষে বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করেন শ্রেণি শিক্ষকগণ। পরে মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ। উল্লেখ্য হাজী সাইদ ল্যাবরেটরি স্কুলে একাডেমিক লেখাপড়ার পাশাপাশি নানাবিধ সহশিক্ষা কার্যক্রমে ইতোমধ্যে সর্বমহলে প্রশংসিত ও সমাদৃত হয়েছে। এই সাফল্যের ধারা অব্যাহত থাকবে বলে অাশাবাদ ব্যক্ত করেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সাংবাদিক মোহাম্মদ আবদুল মতিন।

সিডনিতে আমরা বাংলাদেশী আয়োজিত বাংলা মেলা অনুষ্ঠিত

গত ২২ ডিসেম্বর (রবিবার) সিডনি প্রবাসী সাংস্কৃতিক সংগঠন আমার বাংলাদেশী বিজয় দিবস উপলক্ষে বাংলা মেলা’র আয়োজন করে। বিজয়ের এই মেলায় শিশু কিশোরদের সংগঠন ড্রীম ওয়ার্ল্ড, কিশলয় কচিকাঁচা, বাংলার আবহমান গানের ধারক সৃষ্টি ও ঐকতান সহ কুমকুম শর্মা, মুনা মুসতাফা, রূপকথা, রানা শরীফ, পলি, রুমাইসা, শুচি, নিলয়, আরমান, সাব্বির, আতিক হেলাল, মিতা আতিক প্রমুখ গান, কবিতা সহ বিজয়ের সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অংশ গ্রহন করে। বাদ্যযন্ত্রে সহায়তা করছে সোহেল, শুভ খান, তপন, সোহান।

বিজয়ের এই অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ল্যাকেম্বার এমপি জিহাদ দিপ, ক্যানটাবুরি-ব্যাঙ্কসটাউনের মেয়র খাল আসফর, প্রাক্তন ডেপুটি মেয়র কার্ল সালেহ ও কাউন্সিলর মোহাম্মদ জামান টিটু।  

২০১৭ সাল থেকে ‘বাংলা মেলা বিজয় সম্মাননা’ প্রদান করে আসছে। এই ধারাবাহিকতায় এই বছর বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আজিজুল হক এবং মোহাম্মদ মোবারক হোসেনকে সম্মাননা প্রদান হয়। এছাড়াও প্রবাসে সাংবাদিকতা ও সামাজিক কার্যক্রমের স্বীকৃতি স্বরূপ আবদুল্লাহ ইউসুফ শামীম ও নাইম আবদুল্লাহ’কে বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়। 

এছাড়াও বিজয় দিবস উপলক্ষে শিশু কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় পুরস্কার বিতরন করা হয়। আয়োজকরা জানান, শিশু- কিশোরদের বাংলাদেশী সংস্কৃতি চর্চায় উৎসাহিত করতে, অন্যান্য সংস্কৃতির সাথে পরিচিত করতে এবং বিশ্বের কাছে বাংলাদেশকে তুলে ধরতে আমাদের এই প্রচেষ্টা। আমাদের মূল উদ্দেশ্য, আমাদের কমিউনিটিকে আরও শক্তিশালী করে অষ্ট্রেলিয়ার বৃহত্তর সমাজে ইতিবাচক অবদান রাখা।

সিডনিতে ড. আব্দুর রাজ্জাকের দাফন সম্পন্ন

স্থানীয় সময় আজ ২৩ ডিসেম্বর (সোমবার) জোহর নামায শেষে সিডনির লাকেম্বা বড় মসজিদে মরহুম ড. আব্দুর রাজ্জাকের নামাযে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা শেষে বিকেল সাড়ে তিনটায় রিভারস্টোন সেমিট্রির মুসলিম কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। মরহুমকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে জানাযা ও দাফনে সর্বস্তরের প্রবাসী, গুণগ্রাহী, বন্ধু ও আত্নীয় স্বজন সহ বাংলাদেশীরা অংশগ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য গত ২২ ডিসেম্বর (রবিবার) দুপুর সোয়া দুটোর অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের (এক অংশের) সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু কাউন্সিল অব অস্ট্রেলিয়ার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অধ্যাপক ড. আব্দুর রাজ্জাক সিডনির নরওয়েস্ট প্রাইভেট হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন। তিনি বেশ কিছুদিন ধরে একাধিক দুরারোগ্য ব্যাধিতে ভুগছিলেন। তিনি ১৯৪৬ সালে বগুড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। মরহুম ড. আব্দুর রাজ্জাক অস্ট্রেলিয়া আসার আগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে মনোবিজ্ঞান বিষয়ে অধ্যাপনা করেছেন। এরপর তিনি সিডনির ওয়েস্টার্ন সিডনি ইউনিভার্সিটিতে আইন বিভাগে দীর্ঘদিন শিক্ষকতা করেছেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই পুত্র, এক কন্যা ও অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

সিডনিতে ক্যাম্বেলটাউন বাংলা স্কুলের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত

স্থানীয় সময় ২২ ডিসেম্বর (রবিবার) স্কুল প্রাঙ্গনে ক্যাম্বেলটাউন বাংলা স্কুলের বার্ষিক সাধারন সভা ও আগামী দুই বছরের জন্য কার্যকরী কমিটি ও আগামী চার বছরের জন্য ব্যবস্থাপনা পর্ষদ সদস্যদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সকাল দশটায় শুরু হওয়া এই সভায় বর্তমান কার্যকরী কমিটির সদসবৃন্দ, ব্যবস্থাপনা পর্ষদ সদস্য, শিক্ষক, অভিভাবক এবং স্কুলের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।  

প্রথম অধিবেশন সাধারণ সম্পাদকের প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন কাজী আশফাক রহমান, অধ্যক্ষের প্রতিবেদন নিয়ে আসেন রোকেয়া আহমেদ এবং কোষাধ্যক্ষের আর্থিক বিবরণী পেশ করেন মসিউল আজম খান স্বপন। সভাপতির  সমাপনী বক্তব্যে আবদুল জলিল সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বর্তমান কার্যকরী কমিটি  বিলুপ্ত ঘোষনা করেন।

দিতীয় অধিবেশনে রিটার্নিং অফিসার গোলাম মওলা পরবর্তী কার্যকরী কমিটি এবং ব্যবস্থাপনা পর্ষদ নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করেন। মনোনয়ন পত্র যাচাই বাছাই শেষে তিনি ২০২০-২১ বর্ষের জন্য নতুন কার্যকরী কমিটি ঘোষনা করেন। মাসুদ হোসেন মিথুনকে সভাপতি এবং কাজী আশফাক রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে গঠিত কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন মসিউল আজম খান স্বপন সহ সভাপতি, রুমানা খান কোষাধ্যক্ষ, মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম শাহিন, ক্রীড়া সম্পাদক।

নির্বাহী সদস্যরা হলেন রোকেয়া আহমেদ, ফয়সাল খালিদ, সাজ্জাদ সিদ্দিক, মোহাম্মদ মেহেদী হাসান এবং তারিক আহমেদ। হাউস থেকে উত্থাপিত প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে সর্ব সম্মতিক্রমে ২০২০-২৩ বর্ষের জন্য তিন সদস্যের ব্যবস্থাপনা পর্ষদ ঘোষিত হয়। পর্ষদের সদস্যরা হলেন আবদুল জলিল, শাহ আলম সৈয়দ এবং নাজমুল আহসান খান। 

সভা শেষে সবাইকে হালকা খাবার ও চা চক্রে আপ্যায়িত করা হয়। উল্লেখ্য বর্তমানে গ্রীষ্মকালীন অবকাশে থাকা ক্যাম্বেলটাউন বাংলা স্কুল ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে পুনরায় খুলবে এবং বাংলা স্কুল প্রতি রবিবার সকাল দশটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সব বাংলা ভাষাভাষীর জন্য উন্মুক্ত থাকে।