সিডনিতে পারিবারিক সহিংসতা রোধে ওমেন্স কাউন্সিল অস্ট্রেলিয়া’র আত্মপ্রকাশ

ডঃ রতন কুণ্ডুঃ অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশী মহিলাদের পারিবারিক সহিংসতা বা ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স রোধে ” ওমেন্স কাউন্সিল অস্ট্রেলিয়া ইনক” নামে একটি নতুন সংগঠন আত্মপ্রকাশ করে। আজ ১৭ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার ) সন্ধ্যায় সিডনির লাকেম্বার একটি রেস্টুরেন্টে এই উপলক্ষে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

স্থানীয় কাউন্সিলর শাহে জামান টিটুর অনুপ্রেরণায় প্রবাসী নারী নেতৃত্বে এগিয়ে এসেছেন, তিশা তাসনিম তানিয়া, এলিজ জারা টুম্পা, নাসরিন নাহার, সাজেদা আক্তার, পপি কবির, তাম্মি পারভেজ প্রমুখ।

“End Abuse Now” বা “এখনই সহিংসতা বন্ধ করুন” সংগঠনের মূল স্লোগান নিয়ে সাংবাদিকের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে এলিজা জারা সংগঠনের উদ্দেশ্য, আদর্শ, ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা ও বিভিন্ন মেয়াদী কর্মসূচী বর্ণনার পাশাপাশি এই সংগঠনটি জনকল্যাণমূলক ও সচতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করে যাবে বলেও জানান। তিনি দৃঢ় আশাবাদ করে বলেন, এর ফলে আমাদের প্রবাসী কমিউনিটিতে পারিবারিক সহিংসতা অধিকাংশ ক্ষেত্রে রোধ বা নিয়ন্ত্রণ করা সম্বব হবে।

মিউজিক ফেস্ট এ গান গাইতে অর্ণব সিডনি পৌঁছেছেন

গ্রিনফিল্ড এন্টারটেইনমেন্টের উদ্যোগে ‘মিউজিক ফেস্ট এ অংশ নিতে গতকাল ১৬ অক্টোবর কণ্ঠশিল্পী অর্ণব সিডনি এসে পৌঁছালে মিউজিক ফেস্ট-এর আয়োজকগন বিবানবন্দরে তাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান। অভ্যর্থনায় উপস্থিত ছিলেন গ্রিনফিল্ড এন্টারটেইনমেন্টের  কর্ণধার ফয়সাল আজাদ ও এনাম আহমেদসহ  প্রমুখ। সিডনি বিবানবন্দরে অর্ণব বলেন, “আমি ভীষণ এক্সাইটেড, বিশেষ করে সিডনি আমার প্রথম আসা এবং প্রথম কোন শোতে গান গাওয়া।” তিনি প্রত্যাশা করে বলেন, অষ্ট্রেলিয়াতে যেহেতু অনেক বাংলাদেশির বসবাস, বিশেষ করে সিডনিতে তাই অসংখ্য বাংলাদেশী অবশ্যই তার গান শুনতে আসবেন।

আগামী ১৯ অক্টোবর (শনিবার) সিডনির নিউ সাউথ ওয়েলস ইউনিভার্সিটির সায়েন্স থিয়েটার হলে মাইলস্ ও অর্ণবের সুরের মূর্ছনায়  ‘মিউজিক ফেস্ট ২০১৯’ আয়োজন করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে মাইলস ও অর্ণব ছাড়াও গতবছর পারফর্ম করা জনপ্রিয় রাফসানও থাকবে এবছর। সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকেরা নানাবিধ বিষয় এবং টিকেটের মূল্য তুলে ধরেন। সিলভার: ৪০ ডলার, গোল্ড: ৫০ ডলার, প্লাটিনাম: ৬০ ডলার, ডায়মন্ড : ৮০ ডলার, ভি আই পি: ১০০ ডলার এবং ভি ভি আই পি ডিনার সহ টিকেটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫০ ডলার। সকল টিকেট ‘ইভেন্টস এন টিকেট’ অনলাইনে পাওয়া যাচ্ছে বলে আয়োজকরা জানান।

মিউজিক ফেস্ট-এর টাইটেল স্পন্সর, এএনজেড রাহাত ফেরদৌস ও এএনজেড মোবাইল লেন্ডার (ANZ Rahath Ferdose & ANZ Mobile Lender)। প্লাটিনাম পার্টনার : গ্রামীণ রেস্টুরেন্ট, ক্যাটারিং পার্টনার : খুশবু, রেস্টুরেন্ট পার্টনার : গ্রামীণ চাপ এন্ড কাবাব, গ্লোড পার্টনার : রয়াল সিটি, গ্লোবাল একাউন্টিং এন্ড ফিন্যান্স, স্বদেশ এন্টারটেইনমেন্ট, রে-হুয়াইট, এছাড়া মিডিয়া ও সাপোর্টিং পার্টনার স্বদেশ বার্তা, সিডনি প্রতিদিন, নিউজ২৪, বাংলা কথা, প্রশান্তিকা, বিদেশ বাংলা, প্রভাত ফেরী, আড়ঙ্গ, বাংলা বার্তা, জয় যাত্রা টিভি, টাচ পেইন্টিং প্রমুখ।

 মাইলস ও অর্ণব : প্রখ্যাত সঙ্গীত পরিবারে জন্ম নেয়া সাফিন আহমেদ ও হামিদ আহমেদ দুই সহোদরের বিখ্যাত এবং জনপ্রিয় ব্যান্ডদল মাইলস’র জন্ম ১৯৮১ সালে। পিংক ফ্লয়েড এবং বিটলস’র দ্বারা প্রভাবিত ব্যান্ডটি একসময় ইংরেজি গান ছাড়া গাইতোনা। সকলের ধারণা ছিলো তারা বাংলা গান করতে পারবেনা। কিন্তু মাইলস যখন ‘প্রতিশ্রুতি’ নাম দিয়ে বাংলা অ্যালবাম বের করেন এবং সেই অ্যালবাম সকল রেকর্ড ভেঙ্গে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। বিশেষ করে ‘ চাঁদ তারা’ গানটি সবার হৃদয়ে গেঁথে যায়। দ্বিতীয় অ্যালবাম ‘প্রত্যাশা’ বের হওয়ার পর মাইলসকে আর পেঁছনে তাকাতে হয়নি। এবছর মাইলস্ ৪০ বছরে স্পর্শ করেছে। সুতরাং সিডনির শোটি আসলেই বিশেষ একটি মাইলফলক হবে। মাইলস’র সেরা গানগুলো হলো: চাঁদ তারা, ফিরিয়ে দাও, ধিকিধিকি, হৃদয়হীনা, নীলা, প্রথম প্রেমের মতো ইত্যাদি।

অন্যদিকে অর্ণব মানে শায়ান চৌধুরী অর্ণব। শুধুমাত্র আধুনিক বা ব্যান্ডের গানই নয় অসাধারণ রবীন্দ্রসংগীত গেয়ে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছেন। তাঁর ‘সে যে বসে আছে’ গানটি শুনলে এখনও ভক্তরা বিমুগ্ধ হয়ে যায়। রবীন্দ্রসঙ্গীত ছাড়াও অর্ণবের সেরা গানগুলো হলো: সে যে বসে আছে একা একা,ন হোক কলরব, তোমার জন্য মিলছে তারা, বোকা চাঁদ ইত্যাদি।

সিডনিতে ওয়াজ করলেন মাওলানা মুহাম্মদ কাফীলুদ্দীন সরকার

গত ১৩ অক্টোবর (রবিবার) বাদ আসর সিডনির মিন্টু মসজিদে ঢাকা নেসারিয়া কামিল মাদ্রাসার অধক্ষ ডঃ মুফতি মাওলানা মুহাম্মদ কাফীলুদ্দীন সরকার সালেহী বিজ্ঞান ও কুরআন শীর্ষক ওয়াজ ও বয়ান করেন। ডঃ খাইরুল চৌধুরীর সঞ্চালনায় মোঃ বাকী চৌধুরী হজরতের ওয়াজ ইংরেজিতে তরজমা করেন। ওয়াজ মাহফিল শেষে উপস্থিত মুসুল্লিদের রাতের খাবার পরিবেশন করা হয়।

স্বদেশ বার্তা ও সোলার ওয়ার্ল্ডের আর্থিক তত্ত্বাবধানে আয়োজক কমিটিতে ছিলেন মোঃ হারুনর রশিদ, মোঃ গোলাম জাকারিয়া ও ডঃ খাইরুল চৌধুরী।