সিডনীতে রুয়ার বার্ষিক সাধারন সভা অনুষ্ঠিত

গত ৩১ আগস্ট সিডনীর প্লাউ এন্ড হ্যারো পার্ক, এবটসব্যারীতে রাজশাহী ইউনিভার্সিটি এলামনাই এ্যাসোসিয়েশন, অস্ট্রেলিয়া (রুয়া’র) বারবিকিউ ও বার্ষিক সাধারন সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হয়।

অস্ট্রেলিয়াতে বসবাসকারী রাজশাহী ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন সকল ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষকমন্ডলী, পিএইচডি গবেষক ও তাদের পরিবারবর্গ এতে অংশগ্রহন করেন। গান, আড্ডা, খেলাধুলা, ক্যাম্পাস জীবনের রঙ্গীন দিনের স্মৃতিচারণের মধ্য দিয়ে দিনটিকে সবাই উপভোগ করেন।সিডনীর আবহাওয়ায় মেঘ বৃস্টির লুকোচুরি খেলার সাথে সাথে পার্কের নির্ধারিত শেড এ প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষকমন্ডলী ও তাদের পরিবারবর্গ দিয়ে কানায় কানায় পরিপূর্ণ ছিল। বর্ণী খালিদ এর ঝালমুড়ি এবং ফারহানা পারভীন সিমি এর মিষ্টি, ফুড প্লাটার ও কফি আপ্যায়নের মধ্য দিয়ে শুরু হয় রুয়া’র বারবিকিউ এর মুল পর্ব।

সেই সাথে চলতে থাকে মজার মজার গানের তালে পুরোনো দিনের গল্প ও আড্ডা। সবচেয়ে উপভোগ্য ছিল প্রীতি ফুটবল ম্যাচ। এতে রেফারী হিসেবে নেতৃত্ব মেসবা হোসেন ও মেসি দলের ক্যাপ্টেন শহীদ এইচ চৌধুরী তরুন এবংরোলানদো দলের ক্যাপ্টেন ছিলেন আনিসুর রহমান নান্টু। বার-বি কিউয়ের নেতৃতে ছিলেন ওবায়দুর রহমান পরাগ, শাহ মতিন পপলু, জুলফিকার আহমেদ, আনিসুর রহমান নান্টু, শহীদ এইচ চৌধুরী তরুনও জুবায়েদুর রহমান টুটুল।

শিশুদের জন্য ও ছিল মজার মজার গেম। মেসবা হোসেন এর পরিচালনায় ও ওবায়দুর রহমান পরাগ এর সভাপতিত্বে কেক কেটে রুয়া’র এজিএম শুরু হয়। আলোচনায় রাজশাহী ইউনিভার্সিটি এলামনাই এ্যাসোসিয়েশন, অস্ট্রেলিয়া(রুয়া’র)এর সার্বিক উন্নয়ন ও ভবিষ্যত কর্ম পরিকল্পনার বিভিন্ন দিক নিয়ে সবাই তাদের নিজ নিজ মতামত তুলে ধরেন। উক্ত অনুষ্ঠানে পরবর্তী দুই বছরের জন্য ২৪ সদস্য বিশিষ্ট রুয়া’র নতুন কমিটি ঘোষণা করে সবার সাথে পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়।

নতুন কমিটিতে প্রেসিডেন্ট-জুলফিকার আহমেদ, ভাইস প্রেসিডেন্ট কামরুন নাহার রহমান পুতুল ও শাহ মতিন পপলু, ট্রেজারার-ডঃ হেদায়েতুল ইসলাম, জেনারেল সেক্রেটারী-তারিক জামান তুহীন, এসিস্ট্যান্ট জেনারেল সেক্রেটারী-কৃষিবিদ শিপন দাস, অরগানাইজিং সেক্রেটারী-আনিসুর রহমান নান্টু, কালচারাল সেক্রেটারী-ফয়সাল খালিদ শুভ, পাবলিকেশন ও কমুনিকেশন সেক্রেটারী-এলিজা রহমান টুম্পা এবং সম্মানিত সদস্য হিসেবে- ওবায়দুর রহমান পরাগ, ডঃ বদরুল খান, মেসবা হোসেন, মুস্তাক খান, জিয়া হাসান, ডঃ ফেরদৌসি জাহান, তাহমিনা রেজওয়ান, শহীদ এইচ চৌধুরী তরুন, জুবায়েদুর রহমান টুটুল, ফৌজিয়া এস নাজলী, রোকসানা রহমান রাকা, ফারহানা পারভিন সিমি, মমতাজ জাহান চম্পা, সেলিমা রহমান, কাজী জলি কে মনোনীত করা হয়। শেষে,  পুরোনো দিনের জনপ্রিয় বাংলা গানের অনুষ্ঠান ও আকর্ষণীয় র‍্যাফেল ড্র (Raffle Draw) পরিচালনা করেন ফয়সাল খালিদ শুভ, কাজী জলি ও সোনালী বাগচী। 

মেলবোর্ন বাংলা স্কুলের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত

গত ৮ই সেপ্টেম্বর (রবিবার) অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে, মেলবোর্ন বাংলা স্কুল ও মেলবোর্ন বাংলাদেশি কম্যূনিটি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এক ‘ঈদ পুনর্মিলনী’ অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মেলবোর্ন বাংলাদেশী কমিউনিটি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও মেলবোর্ন বাংলা স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা অধক্ষ আলহাজ্জ মোল্লা মোঃ রাশিদুল হক। তিনি বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশী কমিউনিটির সঙ্গবদ্ধ হয়ে কাজ করার উপর গুরুত্ত্ব আরোপ করেন। তিনি মেলবোর্ন বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠার প্রয়োজনীয়তা ও ইতিহাস সবার কাছে তুলে ধরেন এবং পরবর্তী প্রজন্মের জন্যে ভাষা শিক্ষার উপর গুরুত্ত আরোপ করেন। আগামী প্রজন্মের কাছে বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশী কৃষ্টি-সভ্যতা ইত্যাদি পৌঁছে দেয়ার জন্যে মেলবোর্ন বাংলা স্কুলকে আর্থিক-মানবিক-সাংগঠনিক ভাবে সহযোগিতা করার জন্যে সকলের কাছে আহবান জানান।

প্রতিষ্ঠাতা প্রধান উপদেস্টা ড. মাহবুব আলম মেলবোর্ন বাংলা স্কুলের উন্নয়নের স্বার্থে সবার আর্থিক ও মানবিক সহযোগিতা কামনা করেন। এছাড়া সংগঠনের জন্যে ফলপ্রসূ কিছু উদ্যোগের উপদেশ প্রদান করেন সংগঠনের উপদেস্টা ড. মাহবুবুর মোল্লাহ, অভিভাবক ড. আফতাবুজ্জামান, ড. মনির উদ্দিন আহমেদ, ড. আমিরুল ইসলাম, মোঃ আদনান, মোহাম্মদ হাসান সহ অনেকে।

এরপর মেলবোর্ন বাংলা স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয় যার মধ্যে ছিল  মিউজিক্যাল চেয়ার, স্পুন রেসিং ও পিলো পাসিং, ইত্যাদি। সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীরা অত্যন্ত উৎসাহ উদ্দীপনার ভিতর দিয়ে এসব প্রতিযোগিতাসহ অন্যান্য কার্যক্রমে অংশগ্রহন করে। সার্বিক ব্যাবস্থাপনায় ছিলেন শিক্ষিকা মিসেস মিতা পারভিন, মিসেস নাসিমা খান, ড. মোসাম্মৎ নাহার, মিসেস জুবাইদা আলী, অভিভাবক মিসেস ইসমত আরা কাননসহ আরও অনেকে।

এরপর সবাই মধ্যাহ্ন ভোজে অংশগ্রহন করেন ও বাংলা স্কুলকে ভবিষ্যতে আরও সাফল্যমন্ডিত করার লক্ষ্যে কাজ করার জন্যে আলোচনা করেন।

তারপর শুরু হয় ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান। বড়দের মিউজিক্যাল চেয়ার প্রতিযোগিতায় প্রথম হয় আয়েশা, দ্বিতীয় হয় জারীর ও তৃতীয় হয় সাদ, ছোটদের মিউজিক্যাল চেয়ার প্রতিযোগিতায় প্রথম হয় আরিশা, দ্বিতীয় হয় জাফির ও তৃতীয় হয় সুমাইতা, পিলো পাসিং প্রতিযোগিতায় প্রথম হয় সুমাইয়া হক, দ্বিতীয় হয় মানহা মাহবুব ও তৃতীয় হয় খাদিজা। এছাড়া স্পুন রেসিং প্রতিযোগিতায় প্রথম হয় ইফতিখার আহমেদ।

তাছাড়া প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সবাইকে বিভিন্ন পুরস্কার দেয়া হয়। পুরস্কার বিতরন করেন আলহাজ্জ মোল্লা মোঃ রাশিদুল হক, ড. আলম মাহবুব, আলহাজ্জ আবু জাফর মোহাম্মদ আলী ও ড. মাহবুবুর মোল্লাহ।

অনুষ্ঠানের শেষে সবাইকে অনুষ্ঠানে আসার জন্যে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন মেলবোর্ন বাংলা স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ জনাব আলহাজ্জ মোল্লা মোঃ রাশিদুল হক। তিনি এই অনুষ্ঠান সফলভাবে আয়োজন করার জন্যে মেলবোর্ন বাংলাদেশী কমিউনিটি ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান উপদেস্টা ড. মাহবুব আলম, ড. মাহবুবুর মোল্লাহ, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক কবির আহমেদ, শিক্ষিকা মিসেস মিতা পারভিন, মিসেস নাসিমা খান, ড. মোসাম্মৎ নাহার, মিসেস জুবাইদা আলী, অভিভাবক মিসেস ইসমত আরা কানন, ড. মনির উদ্দিন, মোহাম্মদ সামদানী, মোঃ আদনান সহ এই অনুষ্ঠানে এসে তা সাফল্য মন্ডিত করার জন্যে সবার কাছে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

অস্ট্রেলিয়া বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সভা অনুষ্ঠিত

অস্ট্রেলিয়া বিএনপির আয়োজনে তাদের ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে অনুষ্ঠানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন জোরদারের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক মহলেরও হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে গত সেপ্টেম্বর রাতে সিডনির লাকাম্বায় বিএনপির অঙ্গ সহযোগী সংগঠনগুলোর উদ্যোগে কেক কেটে দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন করা হয়

বিএনপি নেতা নাসির উল্লার সভাপতিত্বে এবং অস্ট্রেলিয়া বিএনপির নেতা রাশেদুল হকের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাখেন যুগ্ম আহবায়ক তাওহিদ আহমদ, এডঃ শিবলু গাজী, ইলিয়াস কানচন শাহিন, খন্দকার নাফিস আহমদ, মির্ঝা তারেক বেগ, জয় আহমেদ, কবির আহমেদ, নজরুল ইসলাম নাফিস, রাছেল সিদ্দিকী, রাছেল আহমদ মোঃ আহবাব হোসেন সুন্না প্রমুখ

রাশেদুল হক তার বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকরের অপশাসন আর দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে আন্দোলন ছাড়া সরকারের পতন ঘটানো সম্ভব না তিনি বিএনপির এই চরম সংকটে সকলকে নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহ্বান জানিয়ে আরো বলেন, প্রবাস থেকেও জোরদার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে

সভাপতির তার বক্তব্যে বলেন, পদপদবীর তোয়াক্কা না করে আমরা বিএনপির এই চরম সংকটে মাঠে রয়েছি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া মুক্ত না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে জিয়া পরিবারের জন্য প্রয়োজনে রক্ত দিতেও প্রস্তুত রয়েছি

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে বিএনপির অঙ্গ সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ সমর্থকরা উপস্থিত ছিলেন